Poems by Shirsha Bandyopadhyay

১.

তবুও প্রেম।

 

শৌর্য্য আর আমি একসাথে স্বপ্ন দেখতাম,

শৌর্য কালো পাঞ্জাবি পড়ত ,

আমি সাদা শাড়ি পড়তাম ।

শৌর্য চশমা পরতনা,

আমি মাইনাস পাওয়ারের গ্লাস পড়তাম ।

শৌর্য অগোছালো ভাবে কলকাতার রাস্তায় হাঁটত,

আর , আমি কালো টিপ , খোলা চুলে বাউলে ডুবতাম।

আমি সুররিয়ালিসমের নোটস গিলতাম ,

আর শৌর্য , সুররিয়ালিসমের কবিতা লিখত।

আমি শক্তি চাটুজ্যে পড়তাম ,

ও কোলরিজ, ব্ল্যাঙ্ক ভার্স আওড়াত

শৌর্য কোনোদিন গোর্কিকে ভালোবাসেনি ,

পড়েনি মার্কসের প্রেমের কবিতা,

আমি শেষ বিকেলে গড়ের মাঠে চিৎকার করে

চে এর সবুজ নোটবই পড়তাম।

আমি ‘অনিমেষ’ হতে চেয়েছিলাম,

বন্দুক হাতে বিপ্লবে নেমেছিলাম শহরে..

আর তিলোত্তমার রাজপথ জুড়ে

বৃষ্টি এসেছিল বাহাত্তরের ভোরে।

শৌর্য এখন স্বপ্ন দেখেনা ,

ভৈরবী সাধেনা কবিতা জুড়ে;

স্যুট – টাই পড়ে কেরানি সেজে

রাত্তির করে বাড়ি ফেরে।

আর , আমি দিগন্তরেখা ছুঁয়ে

ছুটে যায় , লাল সূর্যের দিকে।

ঠিক যেদিকে রবসন এর গান ভেসে আসে …

ঠিক যেভাবে শৌর্য চুমু এঁকেছিল ঠোঁটে।
দ্রষ্টব্যঃ – বাবির ( Debasish Banerjee ) ” শ্বেতা ও আমি ” তিরিশ বছর পেরিয়ে।

২.

রোদ্দুর ও ড্যাফোডিলের সংসার।

 

সেদিন বৃষ্টি পড়েছিল সারাটাদিন

আমরা হেঁটে গেছিলাম রাজপথ,

সেদিন রোদ্দুর চুরি করেছিল রাখাল

চিলেকোঠায় শালিক পাখির বকবক।

আমরা হেঁটেছিলাম , সমুদ্দুর পেরোলাম

পেরোলাম ট্রয়ের অলি – গলি

নেশাতুর চোখে রাত নেমে আসে ,

স্টেশন জুড়ে ঘর-ফিরতি কাহিনী।

সেই চোখে চোখ রেখেছে মিদাস

জাল বুনছে গবলিনের বাজার ,

আমি দেখেছি তাকে কিটসের শেষ ছত্রে,

আমি দেখেছি ওই মদির চোখে,

নীরার ফেলে যাওয়া ছেঁড়া খাম ।

আমি সেই চোখে সাঁতরেছি খনিজলে।

আমরা ডুবুরি নিয়ে তলিয়ে গেছি ,

প্রশান্ত মহাসাগরের প্রবালদ্বীপে,

আমি সেই চোখে পেয়েছি

চে এর বিপ্লব , ছোটগল্পের উপসংহার ।

আমরা ঝর্ণার জলে স্নান করলাম ,

অবগাহন করলাম ড্যাফোডিলের সংসারে—-

আমরা পেরোলাম তারায় ঘেরা রাজপথ।

৩.

ট্রয় ও রূপকথারা

বিকেলের নিভে আসা আলোয়,

ছড়িয়ে পড়া ক্যাথারসিসে

তোমায় দেখেছি আমি

ভ্যানগগের রং তুলির টানে,

তোমার স্বপ্ন বুনেছি আমি।

ট্রয়ের ইতিহাসের আঁচড়

নেমে এসেছে আমাদের ব্রজভূমে–

প্যালেটের শেষ হয়ে যাওয়া লাল রঙে,

আঁকিবুকি কেটে সাজিওনা আমায় ,

সাজিও তোমার সাদা-কালো-ধূসরে।

আমি তো রাজপুত্তুর চাইনি ,

চাইনি , ঝলসানো আলোর রাজমহল,

শুধু অবগাহন করতে চেয়েছি

অপার ভালোবাসার সমুদ্দুরে,

শুধু আমাদের রূপকথা লিখব বলে।

––———————————
Sheersha

শীর্ষা বন্দ্যোপাধ্যায় , কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্য ও ভাষায়,এম.এ । হেস্টিং হাউস থেকে বি.এড পাঠরত । বাংলা লিটিল ম্যাগাজিনে কবিতা , গল্প , প্ৰবন্ধ লিখি, কলকাতা সহ অন্য জেলার অনেক ম্যাগাজিনে প্রকাশিত হয়েছে লেখা । সাগ্নিক পত্রিকার সম্পাদক মন্ডলীর সাথে যুক্ত। লেখিকা ও কবি হওয়ার স্বপ্ন দেখি ।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s